অণুগল্পঃ২

আমার বুকে ব্যথা করতেসে।
আমি ভুকু।কারওয়ান বাজার এ থাকি।
আমি এইখানে একাই থাকি।

একা না আসলে,পরিচিত কেউ নাই,একা একা থাকি।সেই হিসেব করতে গেলে আমি একা ই।
আমার একা থাকতে ভাল লাগেনা যদিও।কিন্ত কিছু করার নাই আসলে।
আমার বন্ধুবান্ধবদের ধরে নিয়ে গেছে কয়েকজন মানুষ।কি যেন ওরা কোথায় আছে।ওদের দেখিনা অনেক দিন।কবে যে আসবে কে জানে।
অহ হ্যা আমার কিন্ত শুধু বন্ধুবান্ধব ই নেই,আমি বিবাহিত ও।
আমার কয়েকটা ছেলেমেয়েও ছিলো।
কিন্ত আমার থেকে ওরা আলাদা হয়ে গেছে।

কেন? মনে নেই।
ইদানীং মন ভুলো হয়ে গেছি।
মনে থাকেনা তেমন কিছু।
বয়েস ত কম হলো না।
কত হবে বয়েস? ঠিক মনে পড়তেসেনা।
আমার আবার বয়েস এর হিসাব।এসব শুনলে অন্যরা হাসাহাসি করবে।
আমি এক সময়ে কারওয়ান বাজারের ত্রাস ছিলাম।
বহিরাগতদের কোন প্রবেশাধিকার ছিল না আমার এলাকায়।আমি এবং আমার বন্ধুবান্ধব।আমরাই ছিলাম রাজা এবং আমরাই সবাইকে শাসন করতাম।
কিন্ত কোথায় আমার সেই প্রতিপত্তি?
হারিয়ে গেছে কালের অতলে।
গহ্বরে।
বাতাসে।
এখনো মনে পড়ে আমার সেই গর্জে ওঠার দিন গুলো।
সোনালি স্মৃতিগুলো মাঝেমাঝে মনে পড়ে।
কাঁদি।কিন্ত কাঁদলে আরেক যন্ত্রনা।
আমার গায়ের লোম গুলো ঝড়ে গেছে।চামড়া গুলো উঠে উঠে যাচ্ছে।
সারা শরীরে অসহ্য ব্যথা হয়।আর চোখের পানি লাগলে এত্ত জ্বালা করে,ইচ্ছে করে মরে যাই।
কিছুদিন আগে কয়েকজন ডাক্তার এসে দেখে গিয়েছিলো আমায়।কি যেন ঔষধ খাইয়ে দিয়েছিলো।কিছুদিন ভাল ছিলাম।আবার তাদের আসার কথা ছিল।আসে নাই।
যার জন্যে আবার বেড়ে গেছে।
আমি বোধ হয় আর বেশিদিন বাঁঁচবো না।শরীর আর চলে না।খাবার খুজতে যাইতে পারি না।শরীরে ব্যথা।
আমার এক পা ভাঙা।সেই পায়ে এখন আবার ব্যথা করে।কি যে যন্ত্রনা ধুর।
যাই।একটু খাবার খুজতে যাই।দেখি বাজারের আশেপাশে কিছু পাই কিনা।গত পরশুদিন একটা বনরুটি খাইসিলাম।আজকে আর পেট মানতেসে না।
বাবুল মিয়ার গোশত বিতান দেখা যাইতেসে।সাইডে কিছু উচ্ছিষ্ট মাংস দেখা যাইতেসে।আহা কতদিন পর মাংস খাবো।
হঠাৎ একটা পিকাপ এসে আমায় ধাক্কা দিলো!
ছিটকে পড়লাম আমি।
কয়েক মূহুর্ত পর জ্ঞান ফিরলো আমার।উঠে দাড়ালাম।কেমন যেন হালকা লাগছে শরীরটা।
দৌড়ানোর মত শক্তি মনে হয় শরীরে আছে।হঠাৎ হলো কি আমার?
দৌড় দিব কিনা ভাবতেসি।যদি পরে যাই?
নাহ।দৌড়াব।আমাকে আজ মাংস খেতেই হবে।সৃষ্টিকর্তা তাই আমার গায়ে শক্তি দিয়েছে।
মাংসের কাছে গেলাম।গন্ধ শুকলাম।কই মাংসের সেই চিরচেনা গন্ধ?
পাচ্ছি না ত।
হাত দিয়ে মাংস ধরার চেষ্টা করলাম।
একি!
আমি মাংস ধরতে পারছিনা কেনো?!!!
কি হলো আমার?!!!!
আশ্চর্য ত।আমি মাংস খাবো!আমি ক্ষুধার্ত।আমি খেতে পারছিনা কেনো?!
বাম পাশে রাস্তায় একটু ভীড় দেখতে পেলাম।
কোন এক্সিডেন্ট হয়েছে বোধহয়।
এগিয়ে গেলাম।দেখলাম সিটি কর্পোরেশনের ময়লার ভ্যান এসেছে।সেই ভ্যান এ একটা কুকুরের লাশ।
মৃত।
ভাল করে দেখতে এগিয়ে গেলাম।
দেখলাম একটা কুকুর।ধুসর রঙের,লোম নেই গায়ে,সারা গায়ে ফোস্কার মত জখম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *